BdNewsEveryDay.com
Tuesday, September 25, 2018

রাজৈরে ব্যাংককর্মীকে কুপিয়ে হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী গ্রেপ্তার

Thursday, June 21, 2018 - 838 hours ago

মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলার বহুল আলোচিত দিন-দুপুরে গ্রামীণ ব্যাংকের কর্মী সোহেল চৌধুরীকে (৩৫)  কুপিয়ে হত্যা করে টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনায় মূল পরিকল্পনাকারী ওই গ্রামীণ ব্যাংকের কর্মকর্তা দ্বীন ইসলাম উকিলকে গ্রেপ্তার করেছে রাজৈর থানা পুলিশ। কর্মচারী সমিতি নির্বাচন ও বদলি সংক্রান্ত বিরোধকে কেন্দ্র করে এই পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ডটি সংঘটিত হয়েছে বলে জানায় পুলিশ।

নিহত ব্যাংককর্মী সোহেল এই হত্যাকাণ্ডের মূল পরিকল্পনাকারী দ্বীন ইসলাম উকিলের আপন চাচাতো বোনের ছেলে। 

পুলিশ, পারিবারিক ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সোহেল হত্যার ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করতে বাধা দেওয়া ও নির্দিষ্ট ব্যক্তিদের আসামি না করাসহ বিভিন্ন রহস্যজনক আচরণের জন্য পুলিশের সন্দেহ হলে গত মঙ্গলবার রাতে পুলিশ রাজৈরের টেকেরহাট বাসস্ট্যান্ড থেকে দ্বীন ইসলাম উকিলকে গ্রেপ্তার করে। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে বেড়িয়ে আসে খুনের মুল রহস্য। এরপরে বুধবার তাকে জেলহাজতে পাঠানো হয়। 

এই হত্যাকাণ্ডের সাথে আরো অনেকে জড়িত রয়েছে বলে জানায় পুলিশ। তবে তদন্তের স্বার্থে তাদের নাম প্রকাশ করেনি পুলিশ। 

এ ব্যাপারে রাজৈর থানার ওসি মো. জিয়াউল মোর্শেদ গ্রেপ্তারকৃত দ্বীন ইসলাম উকিলের বরাত দিয়ে  জানান, গ্রামীণ ব্যাংকের সিনিয়র কেন্দ্র ব্যবস্থাপক (উচ্চতরমান) দ্বীন ইসলাম উকিল মাদারীপুর সদর উপজেলার কেন্দুয়া শাখায় কর্মরত ছিল। গত ১ এপ্রিল পদোন্নতি পেয়ে অফিসার পদে পদায়ন হয় এবং গত ১২ জুন কর্তৃপক্ষ তাকে খালিয়া শাখায় বদলি করে। অন্যদিকে খালিয়া শাখায় কর্মরত দ্বীন ইসলাম উকিলের ভাগ্নে সোহেল চৌধুরীও একই পদ থেকে পদোন্নতি পেয়ে অফিসার পদে একই শাখায় কর্মরত রয়েছে। সোহেল চৌধুরী বদলি না হলে দ্বীন ইসলাম উকিল খালিয়া শাখায় যোগদান করতে পারছিল না। এ নিয়ে মামা-ভাগ্নের মধ্যে বিরোধ চরম আকার ধারণ করছিল। 

তিনি আরো জানান, এদিকে কর্মচারী সমিতি নির্বাচনের ক্ষেত্রেও মামা-ভাগ্নে ছিল পরস্পর বিরোধী অবস্থান। ঈদের আগে ১৩ জুন টেকেরহাটে এক ইফতার পার্টিতে উভয় বিষয় নিয়ে মামা-ভাগ্নের মধ্যে বাকবিতণ্ডা ও হাতাহাতি সংঘটিত হওয়ায় ইফতার পার্টি ভণ্ডুল হয়ে যায়। এ সময় মামা দ্বীন ইসলাম  ভাগ্নে সোহেল চৌধুরীকে হত্যার হুমকি দেয়। হত্যাকাণ্ড ঘটনার দিন দ্বীন ইসলাম উকিল মোবাইল ফোনে কথা বলে সোহেল চৌধুরীর অবস্থান নিশ্চিত করে হত্যাকাণ্ড ঘটনায় বলে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে এই সব তথ্য বেরিয়ে আসে।

এ প্রসঙ্গে গ্রামীণ ব্যাংক টেকেরহাট শাখা ম্যানেজার সাইফুল ইসলাম জানান, সোহেল সৎ চরিত্রের কর্মকর্তা ও অনেক ভালো লোক ছিল। আমরা এ হত্যার সুষ্ঠু বিচার চাই। 

উল্লেখ্য, মাদারীপুরের রাজৈরের টেকেরহাট খালিয়া শাখার সিনিয়র কেন্দ্র ব্যবস্থাপক সোহেল চৌধুরীর লাশ গত ১৫ জুন সকাল ১১টার দিকে রাজৈর উপজেলার নয়াকান্দির বেপারীপাড়া এলাকা থেকে উদ্ধার করে পুলিশ।


bdnewseveryday.com © 2017 - 2018