BdNewsEveryDay.com
Sunday, June 24, 2018

প্যারাবন কেটে চিংড়িঘের, নীরব প্রশাসন

Wednesday, June 13, 2018 - 253 hours ago

প্যারাবন কেটে চিংড়িঘের, নীরব প্রশাসন কক্সবাজার জেলার মহেশখালী উপজেলার শাপলাপুরের প্যারাবন কেটে চিংড়ি ঘের নির্মাণ অব্যাহত রেখেছে একটি সিন্ডিকেট। প্রশাসন এসব দেখেও না দেখার ভান করে থাকায় প্যারাবন নিধনকারীরা আরো উৎসাহিত হয়ে চলতি বর্ষা মৌসুমে ও নতুন করে চিংড়ি ঘের নিমার্ণ করে যাচ্ছে। শাপলাপুর ইউনিয়নের পূর্ব পাশে থাকা বিধ্বস্ত বেড়িবাঁধের ভাঙণ দিয়ে নদীর জোয়ারের পানি ভিতরে প্রবেশ করে বহু ফসলি জমি নষ্ট হওয়ায় চাষাবাদে ভিঘœ ঘটে আসছে, ফলে পানি উন্নয়ন বোর্ডের তত্ত্বাবধানে তিনটি প্যাকেজের মাধ্যমে ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ওই বেড়িবাঁধ নির্মাণের কাজ আরম্ভ করা হয় এসব ঠিকাদারের নেতৃত্ব দেন চেয়ারম্যান নুরুল হক বেড়িবাঁধ নির্মাণের সুযোগকে কাজে লাগিয়ে দখলবাজ প্রভাবশালী একদল লোক শাপলাপুর ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল হককে বসে নিয়ে বেড়িবাঁধের পাশে থাকা প্যারাবন কেটে অন্তত ২০টির অধিক চিংড়ি ঘের নিমার্ণ করেছে গত ২০১৭ সালের শুরুতে। এ নিয়ে তোলপাড় শুরু হলে প্রশাসনের টনক নড়ে। বেড়িবাঁধ নির্মাণের কাজ শেষ হওয়ার সঙ্গে ওই ঘেরগুলো ২০১৮ সালের মার্চ মাসে কেটে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে চেয়ারম্যান নুরুল হক মহেশখালী উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে একটি অঙ্গীকারনামা দেন, কিন্তু মার্চ মাসে ওই বেড়িবাঁধের কাজ শেষ হয়ে গেলেও ঘেরগুলো এখনো বিদ্যমান অবস্থায় রয়েছে। ঘেরগুলো কেটে না দেওয়ায় অনেকে তাদের ঘেরগুলো উচ্চমূল্য বহিরাগত কিংবা প্রবাসীদের কাছে দখলের পজেশন হস্তান্তর করছে নোটারির মাধ্যমে, এতে আরো উৎসাহিত হয়ে ছাদেকের কাটার আমান উল্লাহ ফিরোজের নেতৃত্বে একদল লোক সংসদ সদস্যদের নাম ভাঙিয়ে শত শত শ্রমিক দিয়ে মুখবেকী এলাকার প্যারাবন কেটে গত এক মাস ধরে নতুনভাবে আরো ৩টি চিংড়ি ঘের নির্মাণ করে যাচ্ছে। এ দিকে চেয়ারম্যান নুরুল হকের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, দখলবাজরা ক্ষমতাসীন দলের লোক হওয়ায় আমার কিছুই করার নেই। অপর দিকে মহেশখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবুল কালাম থেকে জানতে চাইলে তিনি বলেন বিশেষ একটি টিম গঠন করে এসব অবৈধ ঘের গুলো উচ্ছেদ করা হবে।


bdnewseveryday.com © 2017 - 2018