BdNewsEveryDay.com
Wednesday, October 17, 2018

খালেদাকে সিএমএইচে নিতে চান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

Wednesday, June 13, 2018 - 838 hours ago

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক:

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, বিএনপি চাইলে খালেদা জিয়াকে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) নেয়া হবে। সিএমএইচকে অগ্রাহ্য করার কোনো সুযোগ নেই।

তিনি আরো বলেন, জেলকোড অনুযায়ী সরকারি সর্বোচ্চ ভাল হাসপাতালেই খালেদা জিয়ার চিকিৎসা করাতে চাই আমরা। এ বিষয়ে আমাদের কোনো ঘাটতি নেই। তাকে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচে)চিকিৎসা করানোর প্রস্তাব দেয়া হবে।

মঙ্গলবার দুপুরে বেগম খালেদা জিয়ার ভাই শামীম ইস্কান্দার তিন সদস্যর একটি প্রতিনিধি দল নিয়ে সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে বেগম জিয়ার চিকিৎসা রাজধানীর বেসরকারি ইউনাইটেড হাসপাতালে পারিবারিক খরচে করানোর আবেদন করেন। এরপর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বিএনপি চেয়ারপারসনের চিকিৎসা প্রসঙ্গে সরকারের পরিকল্পনার কথা জানান।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য সরকারিভাবে সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা নিয়েছি। ‘সর্বোচ্চ সেবা’ দেয়ার লক্ষ্যে তারা এখন সিএমএইচের প্রস্তাবটি দেবেন। তিনি যদি সিএমএইচ-এ যেতে চান, আমরা সেখান থেকেও তার পরীক্ষা-নিরীক্ষা করিয়ে দিতে পারি।

বেসরকারি ইউনাইটেডকে বাদ দিয়ে কেন সিএমএইচ- এ প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, প্রাইভেট হাসপাতালটির চেয়ে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় ও সিএমএইচ অনেক সমৃদ্ধ। সেখানে বিশেষজ্ঞ ডাক্তারও রয়েছেন। তাছাড়া সিএমএইচ অনেক ক্রাইসিস মোমেন্টে ভূমিকা রেখেছে। সেই বিবেচনায় আমরা সিএমএইচের প্রস্তাব দেব।

এদিকে, দলের পক্ষ থেকেও কারাবন্দী বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎসার সমুদয় ব্যয় বহন করার আগ্রহ প্রকাশ করেছে দলের কেন্দ্রীয় নেতৃবর্গ। আজ (মঙ্গলবার) দুপুরে নয়া পল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে বিএনপি’র জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন অবিলম্বে দলের চেয়াপারসনকে ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি করার দাবি জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, দেশনেত্রীর চিকিৎসার বিষয়টি মানবিক। কিন্তু বর্তমানে ক্ষমতাসীন সরকার বিষয়টিকে রাজনৈতিক বিষয়ে পরিণত করেছে। সরকার তাদের সবচেয়ে শক্তিশালী প্রতিপক্ষের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেত্রীকে বিনা চিকিৎসায় জীবনে ঝুঁকির মুখে ঠেলে দিচ্ছে।

 

অপরদিকে, বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে ঈদের আগেই নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে শত নাগরিক জাতীয় কমিটির আজ সকালে জাতীয় শহীদ মিনারে তাদের পূর্বঘোষিত মৌন অবস্থান কর্মসূচি পুলিশি বাধার কারণে পণ্ড হয়ে যায়।

উল্লেখ্য, গত শনিবার বেগম জিয়ার চারজন ব্যক্তিগত চিকিৎসক কারাগারে তার শারীরিক পরিক্ষা-নিরীক্ষা শেষে কারাকর্তৃপক্ষকে চার পৃষ্ঠার একটি লিখিত রিপোর্ট দিয়ে জানিয়েছেন, বেগম জিয়া গত ৫ জুন কারাগার তার কক্ষে দাঁড়ানো অবস্থা থেকে ফ্লোরে পড়ে যান। এরপর ৫-৭ মিনিট অজ্ঞান ছিলেন। তখন তার কি হয়েছিল তিনি মনে করতে পারেনি। চিকিৎসকরা বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসনের মাইন্ড স্ট্রোক হয়েছিল। এটা মেজর স্ট্রোকের লক্ষণ। সুচিকিৎসা না পেলে আগামীতে যেকোনো সময় তিনি বড় ধরণের স্ট্রোকের শিকার হতে পারেন।


bdnewseveryday.com © 2017 - 2018