BdNewsEveryDay.com
Sunday, December 08, 2019

একসময় পকেটে ২০০ রুপিও ছিল না, এখন বিশ্বতালিকায়!

Tuesday, August 13, 2019 - 838 hours ago

এই কিছুদিন আগে মার্কিন সাময়িকী ফোর্বস পৃথিবীর সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক পাওয়া তারকাদের তালিকা প্রকাশ করেছিল, তাতে একমাত্র ভারতীয় হিসেবে নাম ছিল বলিউড অভিনেতা অক্ষয় কুমারের। বছরে কাড়ি কাড়ি অর্থ কামান। অথচ একসময় নাকি এই তারকার পকেটে ২০০ রুপিও ছিল না!

আর মাত্র দুদিন পরেই মুক্তি পেতে চলেছে অক্ষয় কুমার অভিনীত ‘মিশন মঙ্গল’। চলছে জোর প্রচারণা। জীবনে অনেক সংগ্রাম করেছেন এ অভিনেতা। ছবি ফ্লপ হতে দেখেছেন। আবার একের পর এক হিট হতেও দেখেছেন। অক্ষয় সম্প্রতি বললেন, কখনোই আশা হারাননি। মেনে নিয়েছেন সংগ্রাম।

অক্ষয় বলেন, ‘কয়েকটি ঘটনার কথা বলি। বহুবারই এসব ঘটেছে। জীবনের করুণ অধ্যায় দেখেছি। ক্যারিয়ারে তিন থেকে চারবার উত্থান-পতনের মধ্যে দিয়ে গিয়েছি, একজন অভিনেতার জন্য যেটা অনেক বেশিই।’

অক্ষয় আরো বলেন, ‘কিন্তু প্রত্যেক বারই আমি এগিয়ে গিয়েছি। একটা জিনিস করতাম, আমার বাড়ির নিচে নামতাম এবং দেখতাম আমার কয়টা গাড়ি আছে। তারপর ঘরের দিকে তাকাতাম। মাঝেমধ্যে আমার অফিসে যেতাম, সবকিছু ভালো করে দেখতাম। কেন আছি আমি? কী লাভ তাতে? ভাবতাম, ঈশ্বর অনেক দয়ালু, অনেক কিছু আছে আমার। পৃথিবীতে অনেকের তো কিছুই নেই। যদি উল্টোটা ভাবি তো সবচেয়ে স্বার্থপর মানুষ হব।’

মুম্বাইয়ে যখন অক্ষয় কুমার আসেন, তখন তাঁর পকেটে ২০০ রুপিরও কম ছিল। ‘যখন এই ইন্ডাস্ট্রিতে কাজ শুরু করি, তখন পকেটে ২০০ রুপিও থাকত না। আর আজ, আমার অনেক অর্থ,’ যোগ করেন অক্ষয়।

‘প্যাডম্যান’, ‘টয়লেট : এক প্রেম কথা’, ‘গোল্ড’—একের পর এক হিট ছবি দিয়ে চলেছেন অক্ষয় কুমার। সবগুলো ছবিই গত বছর বক্স অফিসে ১৫০ কোটির রুপির বেশি আয় করেছে।

এখন ফোর্বসের ধনী তারকাদের তালিকায় স্থান করে নিয়েছেন অক্ষয় কুমার। ফোর্বসের তথ্য অনুযায়ী, গত বছর প্রায় ৪৪৪ কোটি রুপি (৬৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার) আয় করেছেন অক্ষয়।

প্রতি বছরই বিশ্বের সবচেয়ে বেশি আয় করা ১০০ জন তারকার তালিকা প্রকাশ করে ফোর্বস। সেখানে ৩৩তম স্থানে রয়েছে অক্ষয়ের নাম। ফোর্বসের হিসাব অনুযায়ী, প্রতি সিনেমায় প্রায় ৩৪ কোটি থেকে ৬৮ কোটি রুপি আয় করেছেন তিনি। এর পাশাপাশি প্রায় ২০টি বিজ্ঞাপন সংস্থার সঙ্গে চুক্তি রয়েছে অক্ষয়ের। সেখান থেকেও কোটি কোটি রুপি আয় করেন তিনি। সূত্র : ইন্ডিয়া টুডে


bdnewseveryday.com © 2017 - 2018