BdNewsEveryDay.com
Monday, July 22, 2019

মাথায় চুল না থাকলেও আপনি সুন্দর

Tuesday, April 30, 2019 - 838 hours ago

গত সেপ্টেম্বরে স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হন চলচ্চিত্র নির্মাতা তাহিরা কাশ্যপ। ক্যান্সারের সঙ্গে লড়াইয়ে জয়ী হয়ে ফিরেছেন তিনি। তবে আরো একটি জয় রয়েছে তাঁর। সৌন্দর্য নিয়ে নিজের এবং অনেকের ভুল ধারণা ভেঙে ফেলেছেন তিনি।

এখন পর্যন্ত এটাই সবচেয়ে বড় জয় বলেই মনে করছেন অভিনেতা আয়ুষ্মান খুরানার স্ত্রী তাহিরা।

এক দীর্ঘ পোস্টে তাহিরা জানিয়েছেন, তাঁর এখনকার ছবি দেখে অনেকের ভালো নাও লাগতে পারে। কিন্তু গত কয়েক মাসে তাঁর ভেতর অনেক রূপান্তর ঘটেছে। এতে সৌন্দর্য নিয়ে তাঁর নিজের উপলব্ধিগুলো বদলে গেছে। একইসঙ্গে এটি বদলে দিতে সাহায্য করেছে তাঁদের সাত বছরের ছেলের উপলব্ধিও।

নিজের নতুন পোস্টে, তাহিরা কাশ্যপ চুলের রূপান্তরের ছবি তুলে ধরেছেন। এতে রয়েছে লম্বা চুল থেকে ন্যাড়া হওয়ার নানা মুহূর্ত।

তাহিরা লিখেছেন, 'লম্বা চুল নিয়ে আমার মোহ, র‍্যাপুনজেলের সংজ্ঞার সঙ্গে সৌন্দর্যকে সংযুক্ত করা এবং আমার চুলের মধ্যেই বেশিরভাগ সময় নিজেকে লুকিয়ে রাখা (কারণ আমি নিরাপদ বোধ করতাম, আমার লম্বা না হওয়া নাক, ব্রণ বা মুখের ক্ষত সহজেই চুলে ঢাকা পড়ত) থেকে শুরু করে আমার চুল উঠে যাওয়া, টুপি পরা বা ন্যাড়া হয়ে যাওয়া এবং আবার চুল গজানো… আমি প্রতিটি পর্যায় উপভোগ করছি কারণ আমি আমার চুলের সাথে সাথেই সৌন্দর্য নিয়ে আমার ভুল ধ্যান ধারণা, নিরাপত্তাহীনতা সব ফেলে এসেছি।' 



লিখেছেন, 'আমি জানি না, আমি আর লম্বা চুল রাখব কিনা, কিন্তু যাই হোক, আমি নিজেকে লুকোব না আর। আমি পরিশীলিত সৌন্দর্য দাবি করি না, কিন্তু আমি নিজের চিন্তাভাবনা পরিবর্তন করেছি এবং আমার সবচেয়ে বড় জয় হলো, এই ঘটনা আমার সাত বছর বয়সী ছেলে, পরবর্তী প্রজন্মের মনস্তত্ত্ব এবং উপলব্ধি পরিবর্তন করছে।' 

তাহিরা আরো লিখেছেন, 'এই পোস্টটি সব রকমের আকার এবং মাপের নারীদের উৎসর্গ করলাম এবং কেমোথেরাপির সময় চুল উঠে যাওয়ার ভয় যারা পান সবার জন্য এই পোস্ট নিবেদিত। আপনি আগেও সুন্দর ছিলেন, এখনো আছেন এবং সর্বদাই থাকবেন।'

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিজের অ্যাকাউন্টে ক্যান্সারের সঙ্গে যুদ্ধের অভিজ্ঞতা সম্পর্কে অনেকবার লিখেছেন তাহিরা।

গত নভেম্বর শেষ কেমো সেশনের বিষয়েও টুইট করেছেন তিনি। ২০১১ সালে বিয়ে করেন তাহিরা কাশ্যপ ও আয়ুষ্মান খুরানা। তাঁদের দুটি সন্তানও রয়েছে। 

সূত্র: এনডিটিভি 


bdnewseveryday.com © 2017 - 2018