BdNewsEveryDay.com
Monday, February 18, 2019

নয়া দিগন্তে সংবাদ প্রকাশ : সেই ঘটনা তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী

Monday, February 11, 2019 - 174 hours ago

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হোসনে আরা বেগম বীনাকে ওএসডির ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সোমবার সকালে তিনি জনপ্রশাসন সচিব ফয়েজ আহম্মদকে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী। রোববার নয়াদিগন্তে ‘নারায়ণগঞ্জ সদর ইউএনও’র আবেগঘন ফেসবুক স্ট্যাটাস’ শীর্ষক সংবাদ প্রকাশিত।

সংবাদটি প্রকাশিত হওয়ার পর রোববার নারায়ণগঞ্জ প্রশাসনে তোলপাড় শুরু হয়। ঐ দিন জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় এ নিয়ে ব্যাপক আলোচনা হয়। গণমাধ্যমে খবরটি প্রকাশ হলে সেটি প্রধানমন্ত্রীর নজরে আসে।

তিনি বিষয়টি গুরুত্বের সাথে দেখার জন্য জনপ্রশাসনকে নির্দেশ দেন। এবং গত ৪ ফেব্রুয়ারি হোসনে আরা বেগম বীনাকে ওএসডি করা হয়।

নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক রাব্বি মিয়া জানিয়েছেন, মাতৃত্বকালীন ছুটি ভালোভাবে ব্যবহার করতেই সদর ইউএনও হোসেন আরা বিনাকে ওএসডি করা হয়েছে।

তার ভাষ্যমতে, ‘ওএসডি সম্পর্কে আমাদের ধারণা নেগেটিভ। আসলে ওএসডি মানে পরবর্তীতে কোথায় পাঠানো যায় সে সময়ের জন্য স্থগিত রাখা।

রোববার দুপুরে জেলা প্রশাসনের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত সভায় নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) হোসনে আরা বেগম বীনার নির্বাচনের সময় করা কাজের প্রশাংসা করেন। পাশাপাশি এউএনও ও তার সন্তানের সুস্থতা কামনায় সকলকে দোয়া করার কথা বলেন।

রোববার বিকেলে মুঠোফোনে ইউএনও হোসনে আরা বীনা বলেন, রোববার আমার বাচ্চার অবস্থা একটু উন্নত হয়েছে। শনিবার একটু বেশী খারাপ ছিল। একটি অপারেশন ও মানসিক চাপে আমি এখনও অসুস্থ। ডাক্তার এখনো আমাকে রিলিজ দেননি।

ওএসডির বিষয়ে কোন পদক্ষেপ নিবেন কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, প্রথমে আমার সন্তান সুস্থ হওয়া জরুরী। সে সুস্থ হলে পরবর্তীতে আমি সিদ্ধান্ত নিবো। এখন শুধু আমার সন্তানের জন্য দোয়া চাই। পেশাগত কিছু সমস্যার কারণে সেই কর্মকর্তার নাম বলা যাচ্ছে না।

সম্প্রতি বদলি হয়েছেন নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) হোসনে আরা বেগম বীনা। ইউএনও হোসনে আরা বেগম বীনার বিদায়ের আগ মুহূর্তে সন্তান সম্ভাবা হওয়ার বিষয়টি নিয়ে বেশ আলোচিত হয়েছে।

ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহে তার কোল জুড়ে আসে প্রথম সন্তান। তবে সন্তান অপরিপক্ক জন্ম নেওয়ায় বর্তমানে স্কয়ার হাসপাতালের নিবিড় পর্যবেক্ষণে (এনআইসিও) আছে। দীর্ঘ ৯ বছরের দাম্পত্য জীবনের পর মা হয়ে সৌভাগ্যবতী হলেও সাধনা লব্ধ সন্তানের এমন শারীরিক অবস্থা দেখে মানসিকভাবে ভেঙে পড়েন এই ইউএনও। তার নিষ্পাপ সন্তানের এমন অবস্থার জন্য একজনকে দায়ী করে গত ৮ ফেব্রুয়ারি রাতে বীনা তার ফেসবুকে একটি আবেগঘন স্ট্যাটাস দেন।

সকল


bdnewseveryday.com © 2017 - 2018