BdNewsEveryDay.com
Monday, February 18, 2019

অসহায় ও পথশিশুদের পাশে স্মাইল

Monday, February 11, 2019 - 175 hours ago

অসহায় ও পথশিশুদের পাশে স্মাইল একের পর এক চমক লাগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশের অন্যতম সংস্থা স্মাইল (সিক্রেট অফ ইউর হ্যাপিনেস)। স্মাইল একটি স্বোচ্ছাসেবী সংস্থা। যেখানে সদস্য হিসেবে কাজ করছে বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রান্তে থাকা শিক্ষার্থীরা। তারা নিজেদের হাত খরচের টাকা অহেতুক জায়গায় ব্যয় না করে তারা সেটা কাজে লাগাচ্ছে মানবতার কাজে। আর সেই প্লাটফর্মটিই তৈরী করে দিয়েছে স্মাইল। অসহায় ও পথশিশুদের পাশে স্মাইল স্মাইল খুব অল্প কয়েক মাসেই সফলতার সাথে কাজ করে যাচ্ছে। গত অক্টোবরে চালু হওয়ার পর থেকে দেশের ৬ টি বিভাগেই কাজ করে যাচ্ছে এবং ছয়টি বিভাগেই একটি করে কমিটি রয়েছে একজন জেনারেল সেক্রেটারী, একজন কো-অর্ডিনেটর, একজন একাউন্টেড, এবং আরো ১০ টি সেক্টর এর জন্য আলাদা করে একজন হেড অফ ইনচার্জ রয়েছে যারা বিভিন্ন সেক্টরে সফলতার সাথে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে। মানুষের মুখে একটু হাসি ফুটানো। অসহায় ও পথশিশুদের পাশে স্মাইল অসহায়, পথশিশুদের আশ্রয়কেন্দ্র গড়ে তোলা এবং তাদের সু- শিক্ষায় শিক্ষিত করে গড়ে তোলার জন্য স্মাইল ব্যবস্থা করেছে তাদের জন্য ব্রাহ্মমান স্কুল “ইচ্ছের হাসি”। যেখানে পথশিশু অসহায় শিশুরা ছাড়াও ক্লাস করছে বৃদ্ব মহিলা ও পুরুষরা। আর এ স্কুলগুলো পরিচালনা করছে স্মাইলের হেড অফ এডুকেশন সেক্টর। যেখানে ক্লাস নিচ্ছে কলেজ ইউনিভার্সিটি পড়ুয়া স্মাইলের সদস্য শিক্ষার্থীরা। এ ছাড়াও স্মাইল বিভিন্ন স্কুল কলেজে তাদের সচেতনেতামূলক কর্মকান্ড যেমন বাল্য বিবাহ প্রতিরোধ, আত্মহত্যা, শিশু নির্যাতন, নারীর ক্ষমতায়ন, এবং নেশাগ্রস্থ মানুষের মাঝে সুন্দর একটি জীবন ফিরিয়ে দিতে কাজ করছে স্মাইল। তাছাড়া গরীব, এতিম মেধাবী শিক্ষার্থীদের শিক্ষাকে আরো সামনে নিয়ে যেতে স্মাইল তাদের মধ্যে শিক্ষা সামগ্রী বিতরণ করে। অসহায় ও পথশিশুদের পাশে স্মাইল এ ছাড়াও স্মাইল আরো অনেক কাজ করছে তারা চায় সরকারের পাশে থেকে বাংলাদেশকে দারিদ্র্যমুক্ত করতে, তারা চায় অসহায় পথশিশুদের সুশিক্ষা নিশ্চিত করতে, তারা চায় কোন বাবা মাকে কখনো যেনো বৃদ্ধাশ্রমে যেতে না হয়, তারা চায় প্রতিটা মানুষর সচেতনতা। সর্বোপরি স্মাইল চায় প্রতিটা মানুষ হাসুক, প্রান খুলে হাসুক। তাইতো স্মাইল একটি শ্লোগানে বলেছিলো তুমি হাসলেই হাসবো আমরা আর হাসবে বাংলাদেশ।  


bdnewseveryday.com © 2017 - 2018