BdNewsEveryDay.com
Wednesday, June 20, 2018

ক্রিকেট ম্যাচ চলাকালে স্টেডিয়ামে বোমা হামলা, হতাহত ৫৩

Saturday, May 19, 2018 - 763 hours ago

রমজান উপলক্ষ্যে ক্রিকেট ম্যাচ চলাকালে স্টেডিয়ামে বোমা হামলা

আফগানিস্তানের পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশ নানগড়হারের রাজধানী জালালাবাদের একটি স্টেডিয়ামে গতরাতে শক্তিশালী তিনটি বোমার বিস্ফোরণ হয়। এতে আটজন নিহত ও আরো ৪৫ জন আহত হয়েছেন। শনিবার দেশটির প্রাদেশিক সরকার এক বিবৃতিতে একথা জানিয়েছে।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, ‘শুক্রবার রাত ১১টা ২০ মিনিটের দিকে জালালাবাদ নগরীর পুলিশ ডিস্টিক্ট ১ এর ক্রিকেট স্টেডিয়ামে তিনটি বোমা বিস্ফোরণ ঘটে। সমন্বিত এই সন্ত্রাসী হামলায় হতাহতের এ ঘটনা ঘটে।’ খবর বার্তা সংস্থা সিনহুয়া’র।

বিস্ফোরণের আগে পবিত্র রমজান মাস উপলক্ষে একটি স্থানীয় ক্রিকেট ম্যাচ চলছিল।

হতাহতদের অ্যাম্বুলেন্স ও পুলিশের গাড়িতে করে কাছের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। আহতদের মধ্যে আটজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। নিহতদের মধ্যে এই ম্যাচটির আয়োজক হিদায়াতুল্লাহ্ জহির ও বেশ কয়েকজন স্থানীয় কর্মকর্তা রয়েছেন। প্রাদেশিক গভর্ণর হায়াতুল্লাহ হায়াত এই হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন।

এখন পর্যন্ত কোনো গোষ্ঠী বা সংগঠন হামলার দায়িত্ব স্বীকার করেনি।

 

আর কোনো দেশ যাতে জেরুসালেমে দূতাবাস না খোলে তা নিশ্চিত করতে হবে

ডেইলি সাবাহ ও আনাদোলু

মুসলিম দেশগুলোকে অবশ্যই ঐক্যবদ্ধভাবে নিশ্চিত করতে হবে যে, অন্য দেশগুলো যুক্তরাষ্ট্রের অনুসরণে জেরুসালেমে দূতাবাস খুলবে না। ফিলিস্তিনের জেরুসালেমে যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস স্থানান্তর ও বিক্ষোভরত ফিলিস্তিনিদের ওপর ইসরাইলি বাহিনীর গণহত্যা নিয়ে আলোচনার জন্য ইস্তাম্বুলে আয়োজিত ওআইসির জরুরি বৈঠকের উদ্বোধনী ভাষণে গতকাল শুক্রবার এ কথা বলেন তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মওলুদ কাবুসওগলু। তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান এ বৈঠক আহ্বান করেন।

কাবুসওগলু বলেন, চূড়ান্ত ঘোষণায় আমরা মুসলিম উম্মাহর জন্য ফিলিস্তিনের পরিচিতি রক্ষার ওপর জোর দেবো এবং এই ঐতিহাসিক নগরীর পরিচয় পরিবর্তন করতে দেবো না। আমাদেরকে অবশ্যই অন্য দেশগুলোকে যুক্তরাষ্ট্রের দৃষ্টান্ত অনুসরণ করা থেকে নিবৃত্ত রাখতে হবে। ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জারিফও বলেন, ইসলামি দেশগুলোর উচিত অন্যান্য দেশের সাথে সমন্বয় রক্ষা করা। তিনি বলেন, ফিলিস্তিনে ইসরাইলের সাম্প্রতিক অপরাধ ও মার্কিন দূতাবাস জেরুসালেমে স্থানান্তরের পরিপ্রেক্ষিতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সাথে মুসলিম দেশগুলোর সহযোগিতা জরুরি হয়ে পড়েছে। ইসলামি সহযোগিতা সংস্থা বা ওআইসির বিশেষ সম্মেলনে যোগ দিতে বিভিন্ন দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা ইস্তাম্বুলে পৌঁছেছেন। গাজায় ইসরাইলি হত্যাকাণ্ড এবং জেরুসালেমে মার্কিন দূতাবাস স্থানান্তরের বিষয়ে নিন্দা জানাতে গতকাল শুক্রবার তুরস্কের ইস্তাম্বুলে ইসলামিক সহযোগিতা সংস্থার (ওআইসি) জরুরি বৈঠক ডাকেন প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান। ছয় মাসের মধ্যে এটি এরদোগানের আমন্ত্রণে ওআইসির দ্বিতীয় জরুরি বৈঠক।

ওআইসির জরুরি বৈঠকের কয়েক ঘণ্টা আগে পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের প্রস্তুতিমূলক বৈঠকে তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত ক্যাভুসওগলু বলেন, জেরুসালেমে দূতাবাস স্থানান্তর ও গাজায় নৃশংস হামলা ছিল ইসরাইলের শেষ অবলম্বন। তিনি বলেন, গাজার এই হত্যাকাণ্ড সবাইকে গভীরভাবে মর্মাহত করেছে। এ বিষয়ে কেউ চুপ থাকবে না। আমরা এটা নিশ্চিত করতে চাই যে, ইসরাইলি কর্তৃপক্ষ এবং তাদের সৈন্যরা যারা নিরীহ লোকজনকে গুলি করেছে তাদের সবাইকে এর জন্য দায়ী করতে হবে। এক উম্মাহ হিসেবে আমরা ইসরাইলের মানবতাবিরোধী অপরাধের কঠোর জবাব দেব।

ক্যাভুসওগলু বলেন, বৈঠকের শেষে যে ঘোষণা আসবে তাতে আমরা জানিয়ে দিতে চাই জেরুসালেমের ঐতিহাসিক পরিচয়ে কোনো পরিবর্তন আমরা মেনে নিব না। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতিদানের প্রতিবাদ জানিয়ে এরদোগান গত বছরের ডিসেম্বরে ওআইসির বিশেষ বৈঠকের আয়োজন করেছিলেন। তিনি ইতোমধ্যেই অঙ্গীকার ঘোষণা করেছেন শুক্রবারের সম্মেলনে ফিলিস্তিনের ওপর ইসরাইলের হামলার ঘটনায় বিশ্বকে একটি কঠোর বার্তা জানানো হবে।

 


bdnewseveryday.com © 2017 - 2018