BdNewsEveryDay.com
Monday, November 19, 2018

হাওর এলাকার হতদরিদ্র নারীদের জন্য নতুন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে সরকার : চুমকি

Thursday, November 08, 2018 - 260 hours ago

মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের  প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি এমপি বলেছেন, হাওর এলাকার হতদরিদ্র নারীদের কর্মসংস্থান সৃষ্টি করার জন্য হাওর এলাকার সুবিধা বঞ্চিত নারীর অর্থনৈতিক ও সামাজিক ক্ষমতায়নের জন্য আয় ও কর্মসংস্থান কর্মসূচি গ্রহণ করেছে সরকার। হাওর এলাকার সুবিধা বঞ্চিত নারী গোষ্ঠীর  আয় ও কর্মসংস্থান  বৃদ্ধির মাধ্যমে  তাদের জীবন মান  উন্নয়নের জন্য ভাষমান বীজতলা ও বিষমুক্ত সবজি চাষ প্রশিক্ষণ, হাঁস প্রতিপালন প্রদান করে নারী পুরুষ বৈষম্যহীন পরিবেশ সৃষ্টির মাধ্যমে নারীর  অর্থনৈতিক ও সামাজিক ক্ষমতায়নে এই কর্মসূচি ভূমিকা রাখবে। তিনি গত বুধবার সকালে রাজধানীর মহিলাবিষয়ক অধিদফতরের মিলনায়তনে ‘হাওর এলাকার সুবিধা বঞ্চিত নারীর অর্থনৈতিক ও সামাজিক ক্ষমতায়নের জন্য আয় ও কর্মসংস্থান কর্মসূচির উদ্বোধীন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন। মহিলাবিষয়ক অধিদফতরের মহাপরিচালক কাজী রওশন আক্তারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব নাছিমা বেগম  এনডিসি, মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের  অতিরিক্ত সচিব  মাহমুদা শারমিন বেনু, মহিলাবিষয়ক অধিদফতরের পরিচালক মো. আতাউর রহমান, কর্মসূচি পরিচালক জান্নাতুল ফেরদৌস প্রমুখ। প্রতিমন্ত্রী বলেন, সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনী জোরদার করতে হাওর এলাকার সুবিধা বঞ্চিত নারীর অর্থনৈতিক ও সামাজিক ক্ষমতায়নের জন্য আয় ও কর্মসংস্থান কর্মসূচি হাতে নেয়া হয়েছে। এর ফলে গ্রামীণ অঞ্চলের নারীদের জীবনমান উন্নয়নের মাধ্যমে তারা অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী হতে পারবে। সুনামগঞ্জ, হবিগঞ্জ, বি-বাড়িয়া, কিশোরগঞ্জ ও নেত্রকোনা জেলার হাওড় অধ্যষিত এলাকায় আগাম বন্যার ফলে উৎপাদিত ফসলের ব্যাপক ক্ষয় ক্ষতি হয় এবং এই এলাকার মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়ে। বন্যার হাত থেকে মুক্ত করে উক্ত এলাকার পিছিয়ে পড়া নারীদের প্রশিক্ষণের মাধ্যমে আয় ও কর্মসংস্থান করা হবে।   সচিব নাছিমা বেগম এনডিসি বলেন এই কর্মসূচিটি হলো একটি ইনোভেটিভ কর্মসূচি। এই কর্মসূচিটি বাস্তবায়িত হলে শুধু মাত্র হত : দরিদ্র মানুষ দরিদ্র মুক্ত হবে না, পাশাপাশি এলাকার মানুষ অর্গানিক পদ্ধতি উৎপাদিত  বিষমুক্ত ও টাটকা শাক-সবজি  খেতে পারবে। উল্লেখ্য এই প্রকল্পটি ৪টি জেলার মোট ২৮টি উপজেলায় বাস্তবায়িত হবে। প্রকল্পটির ব্যয় ধরা হয়েছে ৬ কোটি ২৩ লক্ষ টাকা। এর মেয়াদ কাল হবে জুলাই ২০১৮ হতে জুন ২০২০ সাল পর্যন্ত।


bdnewseveryday.com © 2017 - 2018