BdNewsEveryDay.com
Saturday, December 15, 2018

ভারত আমাদের সম্মানজনক প্রতিদান দিচ্ছে না: ড. সি আর আবরার

Thursday, October 11, 2018 - 838 hours ago

পানি বণ্টন ও রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন ইস্যুর মতো ঢাকার দু'টি বড় উদ্বেগ নিরসনে ভারতকে সত্যিকারের প্রচেষ্টা নেয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে। গতকাল (বুধবার) রাজধানীর একটি হোটেলে ‘বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক: ভবিষ্যতের পূর্বাভাস’ শীর্ষক এক আলোচনা অনুষ্ঠানে বক্তারা এ আহ্বান জানান। 

অনুষ্ঠানে বক্তারা উল্লেখ করেন, 'যদি ভারত দাবি করে যে, আমরা বন্ধু তাহলে আমরা সমান ও অকপট আচরণ চাই। আমাদের সমৃদ্ধি ভারতেরও সমৃদ্ধির কারণ হবে।’

তারা আরো উল্লেখ করেন, বাংলাদেশ ভারতকে ট্রানজিট ও ট্রান্সশিপমেন্ট সুবিধা দিলেও বাংলাদেশ খুব বেশি কিছু অর্জন করতে পারেনি।

আলোচনায় অংশ নিয়ে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক অধ্যাপক দিলারা চৌধুরী বলেন, রোহিঙ্গারা বাংলাদেশের জন্য এক বিরাট নিরাপত্তা ঝুঁকি এবং তারা যদি ফিরে না যায় তাহলে বাংলাদেশ সামাজিক, রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিকভাবে সব ধরনের ঝুঁকিতে পড়বে। এ ক্ষেত্রে  ভারতের সহযোগিতা দরকার।

অধ্যাপক দিলারা নিরাপত্তার দ্বিতীয় বিষয় হিসেবে পানি ইস্যুটিকে চিহ্নিত করেন এবং এ বিষয়ে ভারতের সুশীল সামাজের কোনো ভূমিকা না দেখতে পেয়ে হতাশা প্রকাশ করেন। নদীমাতৃক বাংলাদেশের নদীগুলো মরে যাওয়ার জন্য তিনি ভারত নির্মিত বাঁধগুলোকে দায়ী করেন।

এ প্রসঙ্গে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ড. সি আর আবরার রেডিও তেহরানকে বলেছেন, বাংলাদেশ ভারতের প্রতি বন্ধুত্বের হাত প্রসারিত করে একতরফাভাবে যতটা সুযোগ সুবিধা দিচ্ছে, ভারত মনে করছে এগুলো তাদের পাওনা। ভারত আমাদের সম্মানজনক প্রতিদান দিচ্ছে না। এর ফলে বাংলাদেশের মানুষের মধ্যে ভারত সম্পর্কে নেতিবাচক মনোভাব সৃষ্টি হচ্ছে।

অনুরূপ মন্তব্য করে একই বিভাগের অধ্যাপক এম শহিদুজ্জামান রেডিও তেহরানকে বলেন, ভারত বাংলাদেশের কাছ থেকে একতরফা সুযোগ নিতে পারছে কারণ আমাদের একটি মর্যাদাপূর্ণ পররাষ্ট্রনীতি নেই। সেজন্য দেশে একটি প্রতিনিধিত্বশীল ও গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত থাকা জরুরি দরকার।

এ সময় তিনি ভারতীয় ক্ষমতাসীন দলের নেতাদের বাংলাদেশ সম্পর্কে সাম্প্রতিক  আপত্তিকর মন্তব্যের তীব্র বিরোধিতা করেন।

আলোচনা সভাটি যৌথভাবে আয়োজন করে বাংলাদেশের কসমস ফাউন্ডেশন এবং ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব সিঙ্গাপুরের ইনস্টিটিউট অব সাউথ এশিয়ান স্টাডিজ (আইএসএএস)।

প্রতিষ্ঠানের মুখ্য গবেষণা ফেলো এবং সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ড. ইফতেখার আহমেদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অধিবেশনে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক সি রাজা মোহন।

অনুষ্ঠানে কসমস ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান এনায়েতউল্লাহ খান, সিঙ্গাপুরের অ্যাম্বাসেডর অ্যাট-লার্জ এবং আইএসএএসের চেয়ারম্যান গোপিনাথ পিল্লাই, ভারতের সাবেক পররাষ্ট্র সচিব ও রাষ্ট্রদূত কৃষ্ণান শ্রীনিবাসন এবং বাংলাদেশের সাবেক ও বর্তমান কূটনীতিবিদ, শিক্ষাবিদ ও সম্পাদকরা বক্তব্য দেন।#

পার্সটুডে/আবদুর রহমান খান/আশরাফুর রহমান/১১


bdnewseveryday.com © 2017 - 2018